ঈদে প্রবাসী আয়ে ২৭% প্রবৃদ্ধি

araihazar news

ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। গত আগস্ট মাসে ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে প্রবাসী আয় এসেছে প্রায় ১৪২ কোটি মার্কিন ডলার। জুলাইয়ে এ আয়ের পরিমাণ ছিল প্রায় ১১২ কোটি ডলার। সেই হিসাবে জুলাইয়ের চেয়ে আগস্টে প্রবাসী আয় ৩০ কোটি ডলার বা পৌনে ২৭ শতাংশ বেড়েছে। প্রবাসী আয়-সংক্রান্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্যাংকসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, মূলত ঈদুল আজহার কারণেই আগস্টে রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সময়টাতে দেশে বসবাসরত তাঁদের পরিবার-পরিজনের কাছে বাড়তি অর্থ পাঠিয়েছেন।

ডলারের বিনিময়মূল্য ৮০ টাকা ধরে হিসাব করলে আগস্টে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রবাসী আয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১১ হাজার ৩৬০ কোটি টাকা। জুলাইয়ে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রবাসী আয় ছিল প্রায় ৮ হাজার ৯৬০ কোটি টাকা। সেই হিসাবে টাকার অঙ্কে জুলাইয়ের চেয়ে আগস্টে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকা বেশি পাঠিয়েছেন দেশে।

জানতে চাইলে ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ মাহবুবুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, মূলত কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করেই রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। বিদেশে বসবাসরত অনেক বাংলাদেশি আছেন, যাঁরা দেশেই কোরবানি দিয়ে থাকেন। এ জন্য তাঁরা বাড়তি টাকা পাঠান।

সৈয়দ মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ানোর জন্য সম্প্রতি সরকারের পক্ষ থেকে কিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সেই উদ্যোগের ফলে রেমিট্যান্স বেড়েছে কি না, তা বুঝতে হলে আগামী কয়েক মাসের চিত্র দেখতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বিদেশ থেকে বৈধ পথে রেমিট্যান্স আনার ক্ষেত্রে শীর্ষে রয়েছে ইসলামী ব্যাংক। গত আগস্টে এ ব্যাংকটির মাধ্যমে প্রায় ৩০ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে। রেমিট্যান্স আহরণে ব্যাংকগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল রাষ্ট্রমালিকানাধীন অগ্রণী ব্যাংক। এ ব্যাংকটির মাধ্যমে আগস্টে প্রায় ১৩ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স দেশে এসেছে। আর তৃতীয় অবস্থানে ছিল রাষ্ট্রমালিকানাধীন সোনালী ব্যাংক। এ ব্যাংকটির মাধ্যমে আগস্টে প্রায় ১১ কোটি ডলার এসেছে।

আগস্টে দেশে যে রেমিট্যান্স এসেছে তার সিংহভাগই এসেছে বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে। বেসরকারি ৩৯টি ব্যাংক মিলে প্রায় ১০০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এনেছে। আর রাষ্ট্রমালিকানাধীন ৫ ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে প্রায় ৪০ কোটি ডলার। বাকি ২ কোটি ডলার এসেছে বিশেষায়িত ও বিদেশি মালিকানাধীন ১১ ব্যাংকের মাধ্যমে।

চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে প্রায় ২৫৩ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স দেশে আসে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশে ১ হাজার ২৭৭ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স এসেছিল।